জবভ:                 উধঃব:  ১৪ জুন ২০২৩

 

বিবৃতি

 

খাগড়াছড়িতে পাহাড়ি শিক্ষার্থীদের উপর হামলার ঘটনায় পিসিপি’র নিন্দা ও প্রতিবাদ অবিলম্বে উস্কানিদাতা শিক্ষক রাকিবকে অপসারণের দাবি

 

খাগড়াছড়ি টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষক রাকিবের উস্কানিতে পাহাড়ি শিক্ষার্থীদের উপর সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি) খাগড়াছড়ি জেলা শাখা। আজ বুধবার (১৪ জুন ২০২৩) পিসিপি খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সভাপতি শান্ত চাকমা ও সাধারণ সম্পাদক রুপান্ত চাকমার সংবাদ মাধ্যমে প্রদত্ত এক যুক্ত   বিবৃতিতে এ নিন্দা ও প্রতিবাদসহ অবিলম্বে সাম্প্রদায়িক শিক্ষক রাকিবকে প্রতিষ্ঠান থেকে অপসারণের দাবি জানান।

বিবৃতিতে নেতৃদ্বয় ঘটনার বিবরণ তুলে ধরে বলেন, আজ সকাল ১১ টার দিকে খাগড়াছড়ি টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজে এক পাহাড়ি ছাত্র ও এক বাঙালি ছাত্রের মধ্যে তুচ্ছ বিষয় নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। এ সময় অপর এক পাহাড়ি ছাত্র ঘটনাটি জানতে সেখানে গেলে উক্ত প্রতিষ্ঠানের সহকারি শিক্ষক (ইলেকট্রনিক বিভাগ) রাকিব ওই ছাত্রকে বিনা কারণে বেত্রাঘাত করে। এরপর বেত্রাঘাতের শিকার হওয়া ওই ছাত্র অধ্যক্ষ হাবিবুর রহমানের কাছে গিয়ে অভিযোগ দেয় এবং অধ্যক্ষ অভিযুক্ত শিক্ষক রাকিবকে ডেকে বিষয়টি সমাধান করে দেয়। অধ্যক্ষের কাছে অভিযোগ দেয়ার কারণে ওই ছাত্রের প্রতি শিক্ষকরা কিবক্ষুব্ধ হয়ে বাঙালি ছাত্রদের উস্কানি দিতে থাকেন। এক পর্যায়ে তার উস্কানিতে ওই প্রতিষ্ঠানের ছাত্র মাসুমের নেতৃত্বে এইচএসসি ২য় বর্ষের ছাত্র মো: ইয়াছিন, মো: রহমান, মো: সোহেল রানা, পারভেজ, সানজিদুল ইসলাম, আরিফ, বাহারসহ আরো কিছু বহিরাগত বাঙালি যুবক সংঘবদ্ধ হয়ে বিনা উস্কানিতে অন্যান্য পাহাড়ি ছাত্রদের উপর হামলা চালায়। এতে কয়েক জন পাহাড়ি ছাত্র গুরুতরভাবে আহত হয়।

            বিবৃতিতে নেতৃদ্বয় আরো বলেন, প্রত্যক্ষদর্শী ও শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলে জানা যায় হামলার সময় ঘটনাস্থলে পুলিশ ও সেনাবাহিনী উপস্থিত ছিল। কিন্তু তারা হামলাকারী বহিরাগত সেটলার বাঙালি শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা না নিয়ে উল্টো পাহাড়ি শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয় এবং ঘটনাটি পাহাড়ি ও বাঙালি সাম্প্রদায়িক সংঘর্ষের দিকে ঠেলে দেওয়ার চেষ্টা চালায়। নেতৃদ্বয় বলেন, যে কোন শিক্ষার্থী শিক্ষা অর্জনের জন্য সে তার প্রতিষ্ঠানে যায়। প্রতিষ্ঠানে গিয়ে সে যদি তাঁর প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকের দ্বারা আক্রান্ত হয়, বেত্রাঘাতের শিকার হতে হয় তাহলে শিক্ষার্থীদের নিরাপদ স্থান কোথায়? সরকার দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বেত্রাঘাত নিষেধ করেছিল, কিন্তু শিক্ষক রাকিব কোন আইনে ও নিয়মে শিক্ষার্থীর উপর বেত্রাঘাত করল। প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ ঘটনার সমাধান দেওয়ার পরও শিক্ষক রাকিব বাঙালি শিক্ষার্থীদের উস্কানি দিয়ে কিভাবে পাহাড়ি শিক্ষার্থীদেরওপর হামলা করার সাহস পাই? আমরা খাগড়াছড়ি টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষক রাকিবের উস্কানিতে পাহাড়ি শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করছি এবং ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদসহ অবিলম্বে সাম্প্রদায়িক উস্কানিদাতা শিক্ষক রাকিবের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও প্রতিষ্ঠান থেকে তাকে অপসারণের দাবি জানাচ্ছি।

বার্তা প্রেরক

প্রঞ্জল চাকমা

দপ্তর সম্পাদক

পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ

খাগড়াছড়ি জেলা শাখা

খবরটি 484 বার পঠিত হয়েছে


আপনার মন্তব্য প্রদান করুন

Follow us on Facebookschliessen
oeffnen