জাতীয় ডেস্ক: জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বিভিন্ন অবদানের জন্য ১৯৭৩ সালের ২৩ মে বঙ্গবন্ধুকে বিশ্বশান্তি পরিষদ কর্তৃক ‘জুলিও কুরি’ শান্তি পদকে ভূষিত করা হয়। আগামী ২৩ মে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ‘জুলিও কুরি’ শান্তি পদক প্রাপ্তির ৫০ বছর পূর্তি যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপন করবে সরকার। এ লক্ষ্যে নেওয়া হয়েছে বেশ কয়েকটি সিদ্ধান্ত। সভার সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে গত ১৭ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব, সকল সিনিয়র সচিব, সকল বিভাগীয় কমিশনার, সকল জেলা প্রশাসক এবং সকল উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে চিঠি পাঠিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

            দিনটি উদযাপন করতে গত ৯ এপ্রিল মন্ত্রিপরিষদ কক্ষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মো. মাহবুব হোসেনের সভাপতিত্বে একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় মোট ১৯টি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ৯ এপ্রিল অনুষ্ঠিত সভার কার্যবিবরণী অনুযায়ী, ২৩ মে জাতীয় পর্যায়ে আলোচনা সভার আয়োজন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ। এ আলোচনা সভা আয়োজনের লক্ষ্যে ‘আলোচনা সভা আয়োজন উপকমিটি’ গঠন করা হয়েছে। জননিরাপত্তা বিভাগের সচিবকে এ উপকমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে। উপকমিটিতে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের সচিব, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের সচিব, বিসিএস প্রশাসন একাডেমির রেক্টর (সচিব), মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিবকে সদস্য হিসেবে রাখা হয়েছে। আর সদস্য সচিব করা হয়েছে জননিরাপত্তা বিভাগের অতিরিক্ত সচিবকে।

            অন্যদিকে, বিভিন্ন সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করতে এ তিনটি ছাড়াও আরও পাঁচটি উপকমিটি গঠন করা হয়েছে। সেগুলো হলো- ভেন্যু ব্যবস্থাপনা ও সাজ-সজ্জা উপকমিটি, অভ্যর্থনা ও আসন ব্যবস্থাপনা উপকমিটি, ভাষণ প্রস্তুত ও অনুষ্ঠান ধারাক্রম তৈরি উপকমিটি, আপ্যায়ন উপকমিটি, অতিথি তালিকা তৈরি, আমন্ত্রণপত্র প্রস্তুত, বিতরণ ও নিশ্চিতকরণ উপকমিটি। সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, প্রিন্ট, ইলেকট্রনিক ও সোস্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক প্রচারের জন্য ৫ মিনিটের ১টি এবং ৩০ সেকেন্ডের ১টিসহ মোট ২টি ভিডিও ডকুমেন্টারি তৈরি করা হবে। এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করবে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়। বঙ্গবন্ধুর ‘জুলিও কুরি’ শান্তি পদক প্রাপ্তির ছবি সংবলিত স্মারক ডাক টিকেট প্রকাশ করবে ডাক ও টেলিযোগ বিভাগ। দেশব্যাপি আয়োজিত সকল অনুষ্ঠানের জন্য একই ডিজাইনের লোগো ও ব্যানার তৈরি করা হবে। সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করবে। আলোচনা সভা অনুষ্ঠানস্থল থেকে বাংলাদেশ টেলিভিশনসহ অন্যান্য বেসরকারি টেলিভিশন ও বাংলাদেশ বেতারে সরাসরি সম্প্রচার করা হবে। বাংলাদেশ বেতার ও বাংলাদেশ টেলিভিশনসহ সকল ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ায় বিশেষ অনুষ্ঠানমালা সম্প্রচার, বিশেষ আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন, জাতীয় দৈনিক ও সাময়িকীতে ক্রোড়পত্র প্রকাশ, পোস্টার প্রকাশ এবং জাতীয়ভাবে নেওয়া কর্মসূচির ব্যাপক প্রচার করা হবে। তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করবে।

            ১৯৭২ সালের ১০ অক্টোবর পদকপ্রাপক হিসেবে বঙ্গবন্ধুর নাম ঘোষণা করে বিশ্বশান্তি পরিষদ। আর পরের বছর ২৩ মে এশীয় শান্তি সম্মেলনে এক আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানে সেই পদক বঙ্গবন্ধুকে পরিয়ে দেন পরিষদের তৎকালীন সেক্রেটারি জেনারেল রমেশচন্দ্র। সেই অনুষ্ঠানে রমেশচন্দ্র বলেছিলেন, ‘বঙ্গবন্ধু শুধু বাংলার নন, তিনি বিশ্বের এবং তিনি বিশ্ববন্ধু।’ স্বাধীন বাংলাদেশে কোনো রাষ্ট্রনেতার সেটিই ছিল প্রথম আন্তর্জাতিক পদক লাভ। আগামী ২৩ মে বঙ্গবন্ধুর এ পদক প্রাপ্তির ৫০ বছর।

খবরটি 407 বার পঠিত হয়েছে


আপনার মন্তব্য প্রদান করুন

Follow us on Facebookschliessen
oeffnen