আন্তর্জাতিক ডেস্ক: মিয়ানমারে তিন ব্রিগেডিয়ার জেনারেলকে সামরিক আদালতে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে সামরিক সরকার। বিদ্রোহী জোট ব্রাদারহুড অ্যালায়েন্সের কাছে আত্মসমর্পণ করায় এবং তাদের বিরুদ্ধে ‘লজ্জাহীনভাবে নিজেদের অবস্থান’ পরিত্যাগ করার অভিযোগ তোলা হয়। এছাড়া আরও তিন ব্রিগেডিয়ার জেনারেলকে একই কারণে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়। শান রাজ্যের লাওক্কাইতে ব্রাদারহুড অ্যালায়েন্সের কাছে আত্মসমর্পণ করেন ব্রিগেডিয়ার জেনারেলসহ শত শত সেনাবাহিনীর। বুধবার (২৪ জানুয়ারি) থাইল্যান্ড ভিত্তিক মিয়ানমারের সংবাদমাধ্যম ইরাবতি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে। মৃত্যুদণ্ড ও যাবজ্জীবন পাওয়া ছয় ব্রিগেডিয়ার জেনারেলের বিরুদ্ধে ‘লজ্জাহীনভাবে নিজেদের অবস্থান’ পরিত্যাগ করার অভিযোগ তোলা হয় এবং সামরিক আদালতে তাদের প্রত্যেকের বিচার করা হয়েছে।

            প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, গত ৪ জানুয়ারি ২০০ অফিসারসহ সেনাবাহিনীর ২ হাজার ৪০০ সেনা চীন সীমান্তের কোকাংয়ে ন্যাশনাল ডেমোক্র্যাটিক অ্যালায়েন্স আর্মির (এমএনডিএএ) কাছে আত্মসমর্পণ করতে বাধ্য হয়। কিন্তু তাদের বন্দি না করে পরবর্তীতে ছেড়ে দেওয়া হয়। পরে সেনাবাহিনী বন্দী করে লাওক্কাইতের হেডকোয়ার্টার প্রধান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো কায়ো, কোকাংয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল টুন টুন মিয়ান্ট এবং ৫৫ নং ডিভিশন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ঝাও মায়ো উইনকে সামরিক আদালতে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছে। আর অপর তিনজন ব্রিগেডিয়ার জেনারেলকে বর্তমানে রাজধানী ইয়াঙ্গুনের ইনসেন কারাগারে আটক আছে এ ধারণা করা হচ্ছে।

            বিদ্রোহীদের একটি অংশ জানিয়েছে, উচ্চপদস্থ তিন সামরিক কমান্ডারকে এমন কঠোর শাস্তি দেওয়ার মাধ্যমে অন্যদের কড়া বার্তা দেওয়া হচ্ছে যে, যদি কেউ বিদ্রোহীদের কাছে আত্মসমর্পণ করে তাহলে তাদের সবার পরিণতি এমনই হবে।

সূত্র: ইরাবতি

খবরটি 354 বার পঠিত হয়েছে


আপনার মন্তব্য প্রদান করুন

Follow us on Facebookschliessen
oeffnen