খেলা ডেস্ক: বাংলাদেশ ও ভারতের চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সুযোগ ছিল সাফ ফুটবল শিরোপা লড়ায়ে। প্রথমে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা ব্যর্থতার গল্প লিখে নেপাল ম্যাচে। এরপর ভারতীয় মেয়েদের আত্মসমর্পণ। তাতে রাশিয়ার ঘরে গেল অনূর্ধ্ব-১৭ সাফের শিরোপা। উয়েফা যখন রুশকন্যাদের পাঠায় বয়স ভিত্তিক সাফের লড়াইয়ে, তখন ধারণা করা হয়েছিল যে সাউথ এশিয়ার টুর্নামেন্টে কর্তৃত্ব করতে যাচ্ছে ইউরোপের মেয়েরা। কেননা শক্তি সামর্থ্য এবং অভিজ্ঞতায় রাশিয়ানদের চেয়ে ঢের পিছিয়ে এ অঞ্চলের যে কোনো দল। সেটা বাংলাদেশে প্রমাণ করে গেল রুশরা। টানা চার জয়ে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হিসেবে শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট পড়েছে তারা। মঙ্গলবার টুর্নামেন্টের শেষ দিনে হয় শিরোপার নিষ্পত্তি। সাফ অনূর্ধ্ব-১৭ নারী টুর্নামেন্টে রাশিয়া অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। কমলাপুরে বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল বাংলাদেশ ও নেপাল। এ লড়াই জিতলে ক্ষীণ হলে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখত গোলাম রব্বানী ছোটনের শিষ্যরা। কিন্তু পারেনি লাল-সবুজ মেয়েরা। বাঁচা মরার লড়াইয়ে হিমালয়ের মেয়েদের সঙ্গে ড্র করে ১-১ গোলে।

            স্বাগতিকরা মাঠে নামার আগে শক্তি হারায়। কারণ কার্ডের জন্য খেলা হয়নি অধিনায়ক রুমা আক্তারের। এরপর খেলা শুরু হতে তাদের জালে বল পাঠায় নেপালি ফরোয়ার্ড সেনু পারিয়ার। এগিয়ে যেতে মাত্র ৮ মিনিট সময় নেয় অতিথিরা। অথচ গোলদাতার সঙ্গে ছিলেন ডিফেন্ডার জয়নব বিবি রিতা। কিন্তু সেনুর সঙ্গে লড়াইয়ে পেরে ওঠেননি তিনি। তাকে ফাঁকি দিয়ে গোলরক্ষক সংগীতাকে পরাস্ত করেন নেপালি ফরোয়ার্ড। শুরুর সে ধাক্কা সামলে আক্রমণে ধার বাড়ায় ছোটনের মেয়েরা। কিন্তু সুযোগ মিসের মহড়ায় প্রথমার্ধে সমতায় ফেরার সৌভাগ্য হয়নি তাদের। ১৯ মিনিটে গোলমুখের সামনে বল পেয়ে লক্ষ্যে স্থির থাকতে পারেননি সুরভী আকন্দ প্রীতি। ২২ মিনিটে শট নিতে ব্যর্থ হন সাগরিকা এবং ৪২ মিনিটে জয়নব বিবির কর্নারে দুর্বল শট নিয়ে সুযোগ হাতছাড়া করেন নুসরাত জাহান মিতু।

            দ্বিতীয়ার্ধে একের পর এক সুযোগ মিস করতে থাকে বাংলাদেশ। অবশেষে স্বাগতিকরা সমতায় ফেরে ৭১ মিনিটে। বদলি নামা তৃষ্ণা রানীর দুর্দান্ত এক ক্রসে দলকে লড়াইয়ে ফেরান সাগরিকা। এরপর এগিয়ে যাওয়ার একাধিক সুযোগ হাতছাড়া করে ছোটনের শিষ্যরা। তাতে ১-১ গোলে অমীমাংসিত থেকে যায় ম্যাচ এবং বাংলাদেশ ছিটকে যায় শিরোপা জয়ের রেস থেকে।

            বাংলাদেশ ছিটকে যাওয়ায় রাশিয়া ভারত ম্যাচটি হয়ে যায় ‘অঘোষিত’ ফাইনাল। চাপের মুখে রুশকন্যাদের সামলে নিতে পারেনি ভারতীয় মেয়েরা। হারে ২-০ গোলে। ১৩ মিনিটে মধ্যে গোল দুটো হজম করে তারা। নবম মিনিটে খুশী কুমারীর হাস্যকর ভুলে এগিয়ে যায় রাশিয়া। ভারতীয় গোলরক্ষকের হাত ফসকে জালে জড়ায় ভাসিলিসা আভডিয়েঙ্কোর ভাসানো শট। এরপর পেনাল্টি থেকে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন ডারিয়া কোতলোভা।

            সাফের এ টুর্নামেন্ট উয়েফার অর্থায়নে হয়েছে। তাই দক্ষিণ এশিয়ার বাইরে থেকে আমন্ত্রিত দল হিসেবে রাশিয়া খেলেছে। দক্ষিণ এশিয়ার সঙ্গে রাশিয়ার ফুটবলের পার্থক্য পরিলক্ষিত হয়। সাফের চার দেশের কেউই রাশিয়ার সঙ্গে পয়েন্ট আদায় করতে পারেনি। দক্ষিণ এশিয়ার নারী ফুটবলে বাংলাদেশ এখন অপ্রতিরোধ্য বিশেষ করে বয়স ভিত্তিক পর্যায়ে। ইউরোপের রাশিয়া থাকায় এ টুর্নামেন্টে বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন হতে পারেনি কিন্তু দক্ষিণ এশিয়ার বাকি দেশগুলোর চেয়ে শীর্ষে থেকে টুর্নামেন্ট শেষ করেছে বাংলাদেশ।

            সাফের শিরোপা অনূর্ধ্ব-১৭ চার ম্যাচের প্রতিটি জিতে ১২ পয়েন্ট নিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়ে জয়ের উল্লাস করে রাশিয়ার মহিলা ফুটবল দল। সাফের শিরোপা জয়ের লড়ায়ে ৭ পয়েন্টে টেবিলের দুইয়ে থেকে রানারসআপ ঘরে তুলে মিশন শেষ করেছে বাংলাদেশ মহিলা দল। পরের স্থানগুলোতে ছিল যথাক্রমে ভারত ৬ পয়েন্ট, নেপাল ৪ পয়েন্ট এবং পয়েন্ট ০ভুটান।

খবরটি 611 বার পঠিত হয়েছে


আপনার মন্তব্য প্রদান করুন

Follow us on Facebookschliessen
oeffnen