পযর্টন ডেস্ক: সারা দেশের ছোট বড়-সব মিলিয়ে সাড়ে ৬০০ ওপরে পর্যটন ও ঐতিহাসিক দর্শনীয় স্থান রয়েছে। যার মধ্যে প্রায় ৫০টির ওপরে পর্যটন স্থানে পর্যটকদের যাতায়াতে সব থেকে বেশি। এসব টুরিস্ট স্পটে পর্যটকদের নিরাপত্তা থেকে শুরু করে বিভিন্ন বিষয়ে সহায়তা করে থাকে বাংলাদেশ পুলিশের ‘টুরিস্ট পুলিশ’। ভ্রমণ পিয়াসুদের হাতের নাগালে সেবা পৌঁছাতে দিতে দীর্ঘদিন ধরে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে টুরিস্ট পুলিশ। মাত্র ১ হাজার ৩০০ জন সদস্য নিয়ে পর্যটক স্পটগুলোতে ২৪ ঘণ্টা পেট্রোলিংয়ের কাজ করছে পুলিশের এই ইউনিট। নিজেদের সেবার মান বাড়াতে বিভিন্ন সময় নানা উদ্যোগ গ্রহণ করে আসছে টুরিস্ট পুলিশ। এর ধারাবাহিকতায় ২০১৫ সালে যাত্রা শুরু করে টুরিস্ট পুলিশের ‘হ্যালো টুরিস্ট’ অ্যাপ। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে সেবার মান বাড়াতে অ্যাপটিকে প্রতিনিয়ত আপডেট করে যাচ্ছে।

টুরিস্ট পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মূলত পর্যটকদের হাতে হাতে পুলিশের এই ইউনিটটির ফোন নম্বর পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে অ্যাপটির মূল্য লক্ষ্য। এছাড়া ‘হ্যালো টুরিস্ট’ ব্যবহার করে একজন পর্যটক কীভাবে পর্যটন স্থানে যাবে, কোথায় থাকবেন, নির্দিষ্ট স্থানে কোনো পরিবহনে কত ভাড়া, সমস্যা হলে কীভাবে অভিযোগ দেবেন ইত্যাদি নানা সেবা নিতে পারবেন। এই সেবা নিতে হলে পর্যটকে প্রথমে তার স্মার্ট অ্যাপটি ডাউনলোড করে ইন্সটল করে নিতে হবে। এর পর অ্যাপের ভেতরে প্রবেশ করে অপশন মোতাবেক এসব সেবা নিতে পারবেন একজন পর্যটক। অ্যাপটিতে ১৫টি অপশনের মাধ্যমে বিভিন্ন সেবা নেওয়া যাবে। ব্যবহারকারীদের জিন্যঅ্যাপটির বাংলা ও ইংরেজি দুটি মাধ্যম রয়েছে।

‘হ্যালো টুরিস্ট’ যে সেবা নেওয়া যায়: হ্যালো টুরিস্ট অ্যাপে আমাদের খুঁজুন ও যোগাযোগ নামে দুটি অপশন পাবেন ব্যবহারকারী। এই দুটি অপশনে গিয়ে টুরিস্ট পুলিশের প্রধানসহ তাদের সব স্তরের কর্মকর্তা ও অফিসের ফোন নম্বর সহজে পেয়ে যাবেন পর্যটক। এসব নম্বরে ফোনে করে পর্যটন সংক্রান্ত বিভিন্ন সেবা নেওয়া যাবে। আমাদের সম্পর্কে অ্যাপের তৃতীয় অপশনটির নাম হচ্ছে ‘আমাদের সম্পর্কে’। এই অপশনে গিয়ে ব্যবহারকারী টুরিস্ট পুলিশের ইতিহাস ও কার্যক্রম সম্পর্কে জানতে পারবেন। ভ্রমণের স্থান অ্যাপের ভ্রমণের স্থান অপশনটি গিয়ে একজন পর্যটক দেশের ৮ বিভাগের ৬৪ জেলার কোথায় কোথায় দর্শনীয় ও ঐতিহাসিক পর্যটন স্থানের নাম জানতে পারবেন। অপশনটিতে এক সঙ্গে ৬৪ জেলার সব পর্যটন ও ঐতিহাসিক দর্শনীয় স্থানের নাম সহজে ব্যবহারকারী জেনে নিতে পারবেন। হোটেল/মোটেল অ্যাপের হোটেল/মোটেল অপশনে গিয়ে ভ্রমণ পিয়াসুরা চট্টগ্রাম, কক্সবাজর ও কুয়াকাটাসহ ২০ জেলার পর্যটন ও ঐতিহাসিক দর্শনীয় স্থানের আশপাশে কি কি হোটেল বা মোটেল রয়েছে সেই সম্পর্কে জানতে পারবেন। পর্যটকদের জন্য এ অ্যাপে ২০টি জেলার পর্যটন স্থান সংলগ্ন বিভিন্ন হোটেলের নাম, ঠিকানা ও ম্যানেজার নম্বর দেওয়া রয়েছে। এখান থেকে নম্বর নিয়ে খুব সহজে হোটেল বুকিং করতে পারবেন পর্যটকরা। ভ্রমণ গাইড অ্যাপের ভ্রমণ গাইড অপশনটিতে চমৎকার সব তথ্য পাবেন পর্যটক। এসব তথ্য ব্যবহার করে ভ্রমণের পরিকল্পনা ও বাজেট ঘরে বসে খুব সহজে করে ফেলতে পারবেন একজন পর্যটক। অপশনটি বিভিন্ন পর্যটনস্থানে কিভাবে যাওয়া যাবে, কত টাকা যাতায়াতে ও হোটেল/মোটেল ভাড়া, কি খাবেন সেখানে গিয়ে কোথায় কোথায় ঘুরবেন, কিভাবে হোটেল বুকিং করাসহ বিস্তৃত তথ্য জানতে পারা যাবে। এই অপশন ব্যবহার করে পর্যটক সম্পূর্ণ গাইড লাইন পেয়ে যাবেন নির্দিষ্ট পর্যটন স্থানের।

নিখোঁজ ও প্রাপ্তি অ্যাপের নিখোঁজ ও প্রাপ্তি অপশনটি একজন পর্যটকের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ এবং উপকারী। বিভিন্ন পর্যটন স্থানে ঘুরতে গিয়ে অনেক পর্যটক নানা মূল্যবান জিনিসপত্র হারিয়ে ফেলন। বিশেষ করে হাতের মোবাইল ফোনটি। অ্যাপের এই অপশনে গিয়ে হারানো জিনিসপত্র টুরিস্ট পুলিশের পেলে তা সম্পর্কে তথ্য জানা যাবে। পরে উপযুক্ত প্রমাণ দিয়ে হারানো জিনিসপত্র পেতে পারবেন পর্যটক। নোটিস/সংবাদ অ্যাপের এই অপশনটি একজন ভ্রমণ পিয়াসুর জন্য গুরুত্বপূর্ণ। এ অপশনে গিয়ে ব্যবহারকারী পর্যটন স্থান সংক্রান্ত বিভিন্ন তথ্য ও জরুরি সংবাদ জানতে পারবেন। বুলেটিন অ্যাপের বুলেটিন অপশনে গিয়ে পর্যটক নানা জরুরি সংবাদ ও বুলেটিন সম্পর্কে জানতে পারবেন। পর্যটন স্থানে যেতে কোনো নির্দেশনা বা জরুরি কোনো সংবাদ থাকলে এ অপশনে পেয়ে যাবেন ব্যবহারকারী। সতর্কতা অ্যাপের এ অপশনে পাহাড়ের কিংবা সমুদ্র সৈকতের থেকে শুরু করে বিভিন্ন পর্যটন স্থানে বেড়াতে কি কি সতর্কতা মেনে চলতে হবে সে সম্পর্কে সম্পূর্ণ গাইড লাইন দেওয়া রয়েছে। আইন কানুন অ্যাপের আইন কানুন নামে অপশনটিতে গিয়ে পর্যটন সংশ্লিষ্ট সব আইন জানতে পারবেন পর্যটক। এ অপশনটিতে একটি পর্যটন স্থানে বেড়াতে গিয়ে পর্যটক কে কি কি আইন মেনা চলা উচিৎ সেই সম্পর্কে সম্পূর্ণ ধারণা দেওয়া হয়েছে। এছাড়া অ্যাপসটিতে ‘জিজ্ঞাসা, ‘ছবি গ্যালারি, ‘আপনার মতামত ও ‘অভিযোগ নামে আরও চারটি অপশন রয়েছে। এসব অপশন ব্যবহার করে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে সেবা নিতে পারবেন পর্যটক। এছাড়া ‘অভিযোগ’ অপশনটি ব্যবহার করে একজন পর্যটক টুরিস্ট পুলিশকে অভিযোগ জানাতে পারবেন।

হ্যালো টুরিস্ট অ্যাপটির বিষয়ে টুরিস্ট পুলিশের (লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া) পুলিশ সুপার ইব্রাহিম খলিল বলেন, কোনো ব্যবহারকারী যদি টুরিস্ট পুলিশের ‘হ্যালো টুরিস্ট’ অ্যাপটি তার স্মার্টফোনে ইনস্টল করেন তাহলে এর মাধ্যমে আমাদের সব পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নম্বর এখানে পেয়ে যাবেন। এসব নম্বর ব্যবহার করে পর্যটকরা যেকোনো অভিযোগ বা সহায়তা পাওয়ার জন্য টুরিস্ট পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবেন। অ্যাপটি ইনস্টলের পর ইন্টারনেট সংযোগ ছাড়াও ব্যবহার করতে পারবেন। অধিকাংশ পর্যটকের কাছে টুরিস্ট পুলিশের নাম্বার নেই। তবে এই অ্যাপটি ফোনে ইনস্টল করা থাকলে সারা দেশের টুরিস্ট পুলিশের নম্বর এক সঙ্গে পেয়ে যাবেন পর্যটকরা। তিনি বলেন, যেমন কোনো পর্যটক যদি কোনো পর্যটন স্থানে গিয়ে সমস্যা পড়েন বা তার কোনো তথ্য জানার প্রয়োজন পড়ে তাহলে অ্যাপট ব্যবহার করে সংশ্লিষ্ট পর্যটন স্থানের টুরিস্ট পুলিশের ইনচার্জের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবেন ফোনে। ফোন পাওয়ার পর ওই পর্যটককে অবশ্যই সাহায্য করার জন্য টুরিস্ট পুলিশ এগিয়ে আসবে। এছাড়া কোনো পর্যটক এমন স্থানে গিয়েছেন যেখানে টুরিস্ট পুলিশের কোনো অফিস নেই, তার পরেও যদি অ্যাপটি থেকে নম্বর নিয়ে যোগাযোগ করা হয় তাহলে টুরিস্ট পুলিশ সংশ্লিষ্ট থানা পুলিশের সঙ্গে ওই পর্যটকের সঙ্গে যোগাযোগ করিয়ে দেবে। এতে করে ওই পর্যটক স্থানীয় থানা পুলিশকে তার সমস্যার কথা জানাতে পারবে। তিনি আরও বলেন, অ্যাপে পর্যটন স্পটের ছবি ও লোকেশন দেওয়া হয়েছে। একজন পর্যটক নির্দিষ্ট পর্যটন স্থানে কিভাবে যাবেন, সেখানে যেতে কত টাকা খরচ হতে পারে তারও তথ্য এ অ্যাপে দেওয়া রয়েছে। হ্যালো টুরিস্ট অ্যাপে টুরিস্ট পুলিশের সব কার্যক্রমের তথ্য দেওয়া থাকে। এছাড়া কোনো পর্যটক যদি পর্যটন স্থানে মোবাইল, টাকাসহ মূল্যবান জিনিসপত্র হারিয়ে ফেলেন সেগুলো যদি পাওয়া যায় সেসব তথ্যও অ্যাপে দেওয়া থাকে। পরে পর্যটক হারিয়ে যাওয়া জিনিসপত্রের বিষয়ে উপযুক্ত প্রমাণ দিয়ে টুরিস্ট পুলিশের কাছ থেকে নিয়ে নিতে পারবেন।

খবরটি 285 বার পঠিত হয়েছে


আপনার মন্তব্য প্রদান করুন

Follow us on Facebookschliessen
oeffnen