স্টাফ রিপোর্টার: রাঙামাটিতে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা ও গণসংবর্ধনায় ফুলেল শুভেচ্ছা সিক্ত হলো প্রথমবার সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ বিজয়ী পাহাড়ের ৫ আদিবাসী কন্যা জাতীয় ফুটবলার। সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ বিজয়ী ৫ আদিবাসী নারী ফুটবলার রুপনা চাকমা, ঋতুপর্ণা চাকমা, মনিকা চাকমা, আনাই মারমা ও আনুছিং মারমাকে বর্ণাঢ্য গণসংবর্ধনা দেয়া হয়। বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৫টায় চিংহ্লা মং মারী স্টেডিয়ামে ৫ আদিবাসী নারী জাতীয় ফুটবলারকে বর্ণাঢ্য গণসংবর্ধনা আয়োজন করা হয়েছে। গণসংবর্ধনা আয়োজন করে রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদ ও জেলা প্রশাসন। গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি উপস্থিত ছিলেন রাঙ্গামাটি সংসদ সদস্য ও খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি দীপংকর তালুকদার এমপি।

            দীপংকর তালুকদার এমপি বলেন, পার্বত্য অঞ্চলের নারীরা দেখিয়ে দিয়েছে তারা কোন ভাবে পিছিয়ে নেই। রুপনা চাকমা যেভাবে গোলবারকে পাহাড়া দিয়ে দেশের জন্য সোনা নিয়ে এসেছে তা আমাদের জন্য বড়প্রাপ্তি। পার্বত্য রাঙ্গামাটির ও পার্বত্য অঞ্চলের জন্য প্রাপ্তি। তিনি বলেন, তোমাদের চলার পথ এখানে যাতে থেমে না যায়। আগামীতে বিশ্বকাপ জয় করে নিয়ে আসতে হবে। জাতির পিতার কন্য শেখ হাসিনা নারী তাই নারীদের তিনি প্রাধান্য দিয়েছেন। বঙ্গবন্ধু বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্ট আয়োজন করে তিনি প্রমাণ করে দিয়েছেন নারীদের সুযোগ দিলে তারা দেশের জন্য কিছু করতে পারে।

            সাফ জয়ী মিডফিল্ডার ঋতুপর্ণা চাকমা বলেন, এতো বড়ো আয়োজন আমাদের মুগ্ধ করেছে। রাঙ্গামাটির মানুষ যে আমাদের এতো ভালোবাসে তা আমরা কল্পনা করতে পারিনি। রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদ ও রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানাই হাজার হাজার মানুষের মাঝে রেখে আমাদেরকে সংবর্ধিত করছে।

            এর আগে রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসন ও রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের যৌথ উদ্যোগে ঘাগড়া স্কুল থেকে তাদেরকে ছাদখোলা গাড়িতে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রায় রাঙ্গামাটি শহরে নিয়ে আসা হয়। এসময় রাস্তায় দাঁড়িয়ে থেকে স্থানীয়রা খেলোয়াড়দের ফুল ছিটিয়ে উষ্ণ অর্ভথনা জানান। খেলোয়াড়রা হাত নাড়িয়ে শুভেচ্ছা জানান। প্রায় ২ ঘণ্টা ছাদ খোলা বাসে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রায় রাঙ্গামাটির বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে রাঙ্গামাটি মারী স্টেডিয়ামে এসে বর্ণাঢ্য বিজয় র‌্যালী শেষ হয়। পরে বিকেল ৫ টায় রাঙ্গামাটি মারী স্টেডিয়ামে বিজয়ী পাহাড়ের পাঁচ নারী ফুটবলারকে ফুল দিয়ে গণসংবর্ধনার স্থলে বরণ করে নেয়। অনুষ্ঠানের শুরুতে জাতীয় সংগীত ও সম্প্রীতির নৃত্যের মাধ্যমে সংবর্ধনা অনুষ্ঠান শুরু হয়।

            গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান। বিশেষ অতিথি উপস্থিত ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা, রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অংসুইপ্রু চৌধুরী, বিজিবি সেক্টর কমান্ডার অধিনায়ক কর্ণেল মো: তরিকুল ইসলাম, রাঙ্গামাটি জোন কমান্ডার লে: কর্ণেল মো: আশিকুর রহমান, পুলিশ সুপার মীর আবু তৌহিদ, রাঙ্গামাটি পৌর মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী, রাঙ্গামাটি জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক হাজী মো: মুছা মাতব্বর ও রাঙ্গামাটির সর্বস্তরের প্রশাসন নেতৃবৃন্দ।

            গত বুধবার (২৮ সেপ্টেম্বর) রাতে জেলার কাউখালী উপজেলার ঘাগড়া ইউনিয়নে মগাছড়ি এলাকায় সাফ জয়ী খেলোয়ার ঋতুপর্ণা চাকমার বাড়ি সংলগ্ন এলাকায় পৌঁছালে দুই শতাধিক গ্রামবাসী তাদের প্রায় ৩ কিলোমিটার পথ মশাল জ্বালিয়ে বরণ করে নেন। পার্বত্য জেলার পাঁচ ফুটবলারের মধ্যে রূপনা চাকমা ও ঋতুপর্ণা চাকমার বাড়ি রাঙ্গামাটিতে আর মনিকা চাকমা, আনাই মারমা ও আনুচিং মারমার বাড়ি খাগড়াছড়ি জেলায়। তারা সকলে রাঙ্গামাটির ঘাগড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ছিলেন।

খবরটি 217 বার পঠিত হয়েছে


আপনার মন্তব্য প্রদান করুন

Follow us on Facebookschliessen
oeffnen