স্টাফ রিপোর্টার, বান্দরবান: বান্দরবানে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের উন্নয়নে কর্মরত সংস্থা প্রতিবন্ধী কল্যাণ সংস্থা (প্রকস) ও সুয়ালক ইউনিয়ন পরিষদ এর যৌথভাবে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সেবার বিষয়ে আয়োজন করা হয় প্রতিবন্ধীবান্ধব ইউনিয়ন পরিষদ গঠনে এক ‘নাগরিক সংলাপ’। এ নাগরিক সংলাপ অনুষ্ঠানে সহযোগিতা করে অ্যাকসেস বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন ও কমনওয়েলথ ফাউন্ডেশন। রবিবার (১৫ নভেম্বর) সকাল ১০ টায় সুয়ালক ইউনিয়ন পরিষদ প্রাঙ্গণে এ নাগরিক সংলাপ আয়োজন করা হয়েছে। এ নাগরিক সংলাপে প্রধান অতিথি উপস্থিত ছিলেন সুয়ালক ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান উক্যনু মারমা।

            নাগরিক সংলাপ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন প্রতিবন্ধী কল্যাণ সংস্থা (প্রকস) ম্যানেজমেন্ট কমিটি, চেয়ারম্যান বার্টল ত্রিপুরা। বিশেষ অতিথি উপস্থিত ছিলেন অ্যাকসেস বাংলাদেশ ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক আলবার্ট মোল্লা। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ইউনিয়ন সমাজকর্মী মাইক্যচিং মারমা, ওয়ার্ড মেম্বার মিবাইঅং মারমা, প্লংনাও ম্রো, আব্দুর সবুর, মোঃ আব্বাছ আলী, মোঃ জসিম উদ্দিন, প্রধান শিক্ষক জোবেদা বেগম, অ্যাকসেস বাংলাদেশ এর মনিটরিং কো-অর্ডিনেটর লিটন বারুরী ও প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর তসলিম জাহান, সুশীল সমাজের প্রতিনিধিবৃন্দ, সাংবাদিকবৃন্দ, প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সংগঠন এর প্রতিনিধি, প্রতিবন্ধী ব্যক্তিবর্গ ও তাদের অভিভাবকবৃন্দ।

প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের বিভিন্ন অভিযোগ ও দাবী গুরুত্বের সাথে বিবেচনায় আনার প্রতিশ্রুতি দিয়ে প্রধান অতিথি চেয়ারম্যান উক্যনু মারমা বলেন, আজকের নাগরিক সংলাপে উঠে আসা বিষয়গুলি বিশেষভাবে বিবেচনায় আনা হবে এবং যারা সেবার বাইরে রয়েছে তাদের অতি সত্ত্বর ইউনিয়ন সমাজকর্মীর সাথে যোগাযোগ করতে বলেন। তিনি আরও উল্লেখ করেন, এধরনের নাগরিক সংলাপের আয়োজন তার ইউনিয়নে এটিই প্রথম। প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা যেন অবহেলিত না হয় সরকার তাদের জন্য প্রতিবন্ধী আইন করেছে। তিনি আরও বলেন, সরকার প্রতিবন্ধীদের স্বাস্থ্য সেবা, প্রতিবন্ধী ভাতা, চাকুরী কোটা ও অন্যান্য সুযোগ সুবিধা প্রদান করছে। সমাজ সেবা অধিদপ্তরের মাধ্যমে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সেবা প্রদানে সব ধরনের ব্যবস্থা করছে। প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের আরো সুযোগ সু অবিধা ও সেবার মান বৃদ্ধির লক্ষে স্থানীয় সরকার ইউনিয়ন পরিষদ কাজ করছে। প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সহায়তায় কাজ করছে প্রতিবন্ধী কল্যাণ সংস্থা (প্রকস)। এবিষয়ে আয়োজক সংস্থাদের ধন্যবাদ জানান।

অ্যাকসেস বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন এর আলবার্ট মোল্লা বলেন, নাগরিক সংলাপ হচ্ছে একটি সামাজিক জবাবদিহিতামূলক ব্যবস্থা যেখানে সেবাদাতা ও সেবাগ্রহীতা মুখোমুখি আলোচনায় অংশগ্রহণ করে, সেবাগ্রহীতারা তাদের সেবার বিষয়ে অভিযোগ ও সমস্যা তুলে ধরেন। অন্যদিকে সেবাদাতারা তাদের সেবার বিষয়ে কোনো ঘাটতি থাকলে তা জানতে পারে। এর ফলে সেবার মান উন্নত হয়। সুতরাং নাগরিক সংলাপ জবাবদিহিতা নিশ্চিকরণের একটি কার্যকর ব্যবস্থা যা ইউনিয়ন পরিষদ সবসময় চলমান রাখা উচিত।

প্রকস এর নির্বাহী পরিচালক জর্জ ত্রিপুরা অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন এবং প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন। তিনি তার প্রতিবেদনে নাগরিক সংলাপ এর উদ্দেশ্য ও প্রত্যাশিত ফলাফল, সুয়ালক ইউনিয়ন পরিষদের সেবাসমূহের সংক্ষিপ্ত বিবরণ তুলে ধরেন। অনুষ্ঠানে ১৩ জন প্রতিবন্ধী ব্যক্তি বিভিন্ন সেবার উপর  সেবাদাতাদের সামনে বিভিন্ন অভিযোগ ও দাবী তুলে ধরেন যার মধ্যে অন্যতম সকল প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জরিপের আওতায় আনা ও কার্ড প্রদান করা, ইউনিয়ন পরিষদ ভবনসহ সকল সরকারি ভবন প্রবেশগম্য করা, দরিদ্র প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জন্য আত্ম-কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা, প্রতিবন্ধী শিশুদের শিক্ষার আওতায় আনা, ইউনিয়ন পরিষদের স্ট্যান্ডিং কমিটিতে প্রতিবন্ধী বক্তিদের অন্তর্ভুক্তকরণ, ইউনিয়ন পরিষদের বাজেটে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের বরাদ্দ রাখাসহ সকল পরিকল্পনা গ্রহণ ও বাস্তবায়ন প্রক্রিয়ায় প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অন্তর্ভুক্তিকরণ ইত্যাদি।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন মেম্বারগণ, শিক্ষক ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিবৃন্দ। অনুষ্ঠানে সেবাগ্রহীতাদের বিভিন্ন প্রশ্ন ও সেবাদাতাদের প্রতিশ্রুতি সম্বলিত একটি কর্মপরিকল্পনা তুলে ধরেন প্রকস এর জর্জ ত্রিপুরা। প্রকস এর ম্যানেজমেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান বর্থল ত্রিপুরা এর ধন্যবাদ জ্ঞাপন এর মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান সমাপ্ত হয়।

 

খবরটি 304 বার পঠিত হয়েছে


আপনার মন্তব্য প্রদান করুন

Follow us on Facebookschliessen
oeffnen